চলমান

ভুয়া খবর বন্ধে উদ্যোগী টুইটার

টেক ভেন্ট: এবার ভুয়া খবরের শেয়ার বন্ধের উদ্যোগ নিয়েছে টুইটার। এর আগে ফেসবুকও একই ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছিল। করোনা আতঙ্কে একের পর এক ভুয়া, ভিত্তিহীন তথ্য ছড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে। ফলে চরম বিভ্রান্ত হয়ে পড়ছে সাধারণ মানুষ।

অনেক আগেই জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো ভুয়া খবর বন্ধে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে। এবার ভুয়া খবরের ছড়িয়ে পড়া বন্ধে নতুন ফিচার নিয়ে এলো টুইটার।

জানা গেছে, কোনও টুইট রিটুইট বা শেয়ার করার আগে এখন একটি নতুন পর্যায় অতিক্রম করতে হবে প্রতিটি ইউজারকে। কোনও টুইট রিটুইট বা শেয়ার করার আগে ইউজারের কাছে জানতে চাওয়া হবে, ওই পোস্ট তিনি পড়ে দেখেছেন কিনা। এর উত্তর দেওয়ার পরই ওই পোস্ট রিটুইট করতে পারবেন যে কেউ।

এই পদ্ধতির মাধ্যমে ইউজারের মাধ্যেই পোস্টের তথ্যগত সত্যতা প্রাথমিকভাবে যাচাই করে নিতে চাইছে টুইটার। আপাতত শুধু অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীদের জন্যই এই বিশেষ ফিচার পরীক্ষামূলকভাবে চালু করেছে তারা।

চলতি বছরের শুরু দিকে এমন উদ্যোগ নিয়ে আলোচনায় আসে ফেসবুক। সে সময় করোনা সম্পর্কে সঠিক তথ্যের প্রচার এবং ভুল তথ্য শেয়ার রোধ করতে উদ্যোগ নেয় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গ এ বিষয়ে জানান, মানুষকে সচেতন করার জন্য স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত প্রায় ২০০ কোটি ব্যবহারকারি করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত তথ্য দিচ্ছেন ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রামে। একই ভাবে প্রায় ৩৫ কোটি ব্যবহারকরি করোনা সম্পর্কে জানতে ক্লিক করছেন ফেসবুকে। তাই ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রামের মাধ্যমে ভুল তথ্য প্রচার কমানোর জন্য আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

তিনি জানান, মার্চের শুরু থেকেই ফেসবুক খবরের সত্যতা যাচাই করার জন্য ১২টিরও বেশি নতুন দেশে কাজ শুরু করেছে। ইতিমধ্যেই ৬০০টিরও বেশি ফ্যাক্ট-চেকিং প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত হয়ে ৫০টিরও বেশি ভাষায় করোনাভাইরাস সংক্রান্ত বিভিন্ন পোস্ট দেখছে ফেসবুক। যদি কোন পোস্টে ভুয়া অথবা ভুল তথ্য থাকে তাহলে সেগুলো সরিয়ে দেয়া হচ্ছে।

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button